শিরোনাম

আদিবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা সবচেয়ে বেশি ঘটে থাকে পরিবারের ভেতরে

ডেস্ক রিপোর্ট: বাংলাদেশের অন্যান্য এলাকার মতো পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসী নারীরাও জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতার শিকার হচ্ছে। পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা সবচেয়ে বেশি ঘটে থাকে পরিবারের ভেতরে।

জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা নিয়ে অধ্যাপক ড. আইনুন নাহার, একটি গবেষনা পরিচালনা করেন। যার শিরোনাম ছিল, “জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা ও বিচার প্রাপ্তি: প্রেক্ষিত পার্বত্য চট্রগ্রাম”। গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফল মঙ্গলবার ব্র্যাক সেন্টারে উপস্থাপণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য জেসমিন আরা বেগম । সভাপ্রধানের দায়িত্ব পালন করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন (এমজেএফ) এর নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।

এমজেএফ এর উদ্যোগে ও সিডার সহায়তায়  “নারী ও মেয়েদের বিরুদ্ধে জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে সুশীল সমাজ ও সরকারি প্রতিষ্ঠানসমুহ শক্তিশালীকরণ“ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এই গবেষণাটি পরিচালিত হয়েছে ।

গবেষণায় উঠে এসেছে যে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে শতকরা ৪৫ জন কর্মক্ষেত্র অথবা প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতার শিকার হয়েছে। শতকরা ৬১ জন কর্মক্ষেত্রে (হাট/বাজার ইত্যাদি) বেশি ঝুঁকিতে থেকেছে। এছাড়া ৪৫% বলেছে এটি ঘটেছে কৃষিকাজের মাঠে অথবা জুম ক্ষেতে ।

অধিকাংশ সময়ে জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতার যে কোনো ঘটনা পরিবারের ভেতরে অথবা স্থানীয় জনগোষ্ঠী পর্যায়ে নিষ্পত্তি হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এসব ঘটনা চেপে যাওয়া হয়, কারণ এগুলোকে ব্যক্তি এবং পরিবারের জন্য “লজ্জাজনক” বলে বিবেচনা করা হয়। তাছাড়া বেশিরভাগ জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা যেহেতু পারিবারিক সহিংসতা, তাই পরিবারের সদস্যদের মধ্যে নিরাপত্তার চিন্তা এবং পাল্টা প্রতিক্রিয়ার ভয় কাজ করে, যার মধ্যে আছে বিয়ে বিচ্ছেদের ঝুঁকি। এ কারণে তারা এটা পরিবারের ভেতরে অথবা বড়জোর স্থানীয় পর্যায়ে সালিশের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করে।

এই গবেষণায় তিন পার্বত্য জেলাকে অন্তর্ভুক্ত করে মিশ্র-পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পরিমাণগত এবং গুণগত পদ্ধতি একে অপরের পরিপূরক হিসেবে ফলাফলকে জোরালো করেছে।

জরিপের বেশিরভাগ অংশগ্রহণকারী ছিলেন গৃহিনী এবং জুম চাষী অথবা কৃষি কর্মী।

(Visited 1 times, 1 visits today)

About The Author

Desk Report Staff Reporter

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী