শিরোনাম

আমাজন রেইন ফরেস্ট এর ভেতর প্রবেশ করা অত্যন্ত কঠিন ।

পৃথিবীর একাধিক গহীন অরণ্যের মধ্যে গবেষকরা, পর্যটকরা, বিভিন্ন টিভি চ্যানেল, আলোকচিত্র সাংবাদিকরা পৌঁছাতে পারলেও এখনো এমন কিছু গহীন অরণ্য রয়েছে যেখানে সবার পক্ষে আজও যাওয়া সম্ভব হয়নি। যেমন কঙ্গো রেইন ফরেস্ট, বর্ণিও রেইন ফরেস্ট ও আমাজন রেইন ফরেস্ট। এর মধ্যে আমাজন রেইন ফরেস্ট সবার জন্য অত্যন্ত কঠিন প্রবেশ করা। যারাই প্রবেশ করেছেন সবাই জীবন নিয়ে ফিরে আসতে পারেননি। এমন কিছু অঞ্চল রয়েছে আমাজনে যেখানে সূর্যের আলো পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে না।

আমাজনে রয়েছে ১২০ ফিট উচ্চতার গাছ, এই গাছটি কতদিনের পুরনো গবেষকরাও সে তথ্য বের করতে পারেননি। কলম্বাস যখন আমেরিকা আবিষ্কার করেন তার আগে থেকেই আমাজনের গহীনে আদিবাসীদের অস্তিত্ব ছিল।

এখানে আরো রয়েছে ৪০ হাজার প্রজাতির উদ্ভিদ, ২.৫ মিলিয়ন প্রজাতির কীটপতঙ্গ, ১,২৯৪ প্রজাতির পাখি। এমন কিছু পাখি যা আজ পর্যন্ত পাখি বিশেষজ্ঞরা যাদের ছবি তুলে নিতে পারেননি, ৩৭৮ প্রজাতির সরীসৃপ, ৪২৮ প্রজাতির উভচর এবং ৪২৭ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী।

এছাড়াও এমন সব ভয়ংকর মাছ আমাজনের নদীতে বসবাস করে যাদের কারণে কোনো প্রাণী আমাজনের পানি পান করতেও ভয় পায়।

আমাজন রেইন ফরেস্ট ও নদী প্রবাহিত জল স্থানীয় আদিবাসী ও লক্ষ কোটি জীবজন্তুকে বিশুদ্ধ অক্সিজেন ও জল দিয়ে যাচ্ছে। যার মাধ্যমে হাজার বছর ধরে জীব বৈচিত্রকে টিকিয়ে রেখেছে আমাজন।

(Visited 20 times, 1 visits today)

About The Author

Desk Report Staff Reporter

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী