শিরোনাম

খাগড়াছড়িতে বিষমুক্ত আম উৎপাদনে ব্যগিং পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ পাহাড়ে আম চাষ মানে সনাতনী পদ্ধতিতে আম উৎপাদন করা। গত এক দশক ধরে খাগড়াছড়িতে ব্যবসার উদ্দেশ্যে আমের চাষ শুরু হয়েছে। এসব বাগানে বিষ ও পোকামাকড়ের আক্রমণ মুক্ত আম উৎপাদনে মনোযোগী হয়েছে অনেক আম চাষী । এ কারণে বাগানীরা গত বছর থেকে আম ব্যাগিং পদ্ধতি অনুসরণ করে আম উৎপাদন করছে। তবে এ বছর অপেক্ষাকৃত ব্যাপক আকারে আম ব্যাগিং পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে। এই ব্যাগিং পদ্ধতিতে বিষ ও পোকামাকড়ের আক্রমণ মুক্ত এবং উন্নত মানের আম ক্রেতাদের কাছে পৌছেঁ দেওয়া সম্ভব হবে।

খাগড়াছড়ি জেলা সদরে ব্যবসায়িকভাবে প্রথম আমের বাগান করেন গুগড়াছড়ি এলাকার বাবু মারমা। গত এক দশক আগে তিনি ব্যবসায়িক আম বাগান সৃজন করেছিলেন। আম বাগান নিয়ে দীর্ঘ অভিজ্ঞতায় তিনি দেখেছেন আম উৎপাদনে ব্যাগিং পদ্ধতি লাভজনক ও ভোক্তাদের জন্য উপকারী। ক্রেতাদের কাছে বিষমুক্ত আম পৌঁছে দেওয়া যায়। যদিও এতে অতিরিক্ত কিছু খরচ গুনতে হয়।

গত রবিবার(২৭ মে/১৮) খাগড়াছড়ি সদরের গুগড়াছড়ি এলাকায় বাবু মারমা’র বাগানে গিয়ে দেখা যায়, ১০-১৫ জন শ্রমিক প্রতিটি গাছের আম ব্যাগিং করছেন। অর্থাৎ কাঁচা অবস্থায় একটি আম’কে একটি ব্যাগে ঢুকানো হচ্ছে। এতে করে আমটি পাকার আগ পর্যন্ত কোন ঔষধ প্রয়োগ করতে হবে না, আমে পোকামাকড়ের আক্রমন হবে না। এই ব্যাগিং অবস্থায় আম ৩০-৪০ দিন পর্যন্ত গাছে রাখা হবে বা রাখা যায় । এতে করে আম দেখতে ভালো ও বাহির থেকে পাকা কলার মতো রং ধারণ করবে। স্বাদেরও কোন পরিবর্তন হবে না।

বাবু মারমা জানান, তিনি শুধু আম উৎপাদন নয় এর সাথে বিভিন্ন জাতের আমের চারাও বিক্রি করে থাকেন। আম্রপালি, রাংগুই (বার্মিজ জাতের আম), বারি-৪ জাতের আম বাগান রয়েছে। এ বছর তিনি ৬০-৭০ টন আম উৎপাদন করতে পারবেন বলে আশা করছেন।

ভোক্তাদের কথা চিন্তা করে খরচ করে হলেও আম ব্যাগিং করছেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, যারা সচেতন, তারা আগ্রহ নিয়ে এই আম কিনে নেন। এতে আমের দামও ভালো পাওয়া যায়।
শুধু ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে আম উৎপাদন নয়, ক্রেতাদের কাছে বিষ ও পোকামাকড় আক্রমণ মুক্ত আম পৌছেঁ দেওয়ার লক্ষ্যে আম উৎপাদনে ব্যাগিং পদ্ধতি অনুরণ করা হচ্ছে। আম ব্যাগিং করা হলে এর উৎপাদন খরচও বেড়ে যায়। তবুও দেশ প্রেম ও ক্রেতাদের কাছে বিশুদ্ধ আম পৌঁছে দেওয়ার তাগিদ থেকেই এই বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হয় বলে জানান বাবু মারমা। তার থেকে শিখে ও ভোক্তাদের কথা চিন্তা করে অনেক বাগানী উদ্যোগ নেবেন বলে ধারণা অনেকের।

(Visited 101 times, 1 visits today)

About The Author

বিপ্লব তালুকদার খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী