শিরোনাম

খাগড়াছড়ির এক সংগ্রামী নারী ও সফল আত্মকর্মীর নাম বীনা রানী ত্রিপুরা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ খাগড়াছড়িতে এক সফল আত্মকর্মী নাম বীনা রানী ত্রিপুরা। তার জন্ম খাগড়াছড়ি শহরের সন্নিকটে খাগড়াপুর গ্রামে। বাবা একজন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসর প্রাপ্ত সৈনিক। মা গৃহিনী। ছোটকাল থেকে বেড়ে উঠা শহরের সন্নিকটে খাগড়াপুর গ্রামে। বলতে গেলে শহরে। সম্প্রতি তিনি একজন সফল আত্মকর্মী হিসেবে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে সফল আত্মকর্মীর সম্মাননা পান। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে।

বীনা রানী ত্রিপুরা, রানী না হলেও বর্তমানে এলাকায় সবাই তাকে বাস্তবে রানী মনে করেন। কারণ সম্প্রতি (১ নভেম্বর ২০১৮) তিনি বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাছিনা থেকে সফল আত্মকর্মীর সম্মাননা পুরস্কার গ্রহন করেন।

১৯৯৬ সালে ৭ম শেণিতে পড়ার সময় বাবা মার পছন্দের ছেলেকে বিয়ে করতে বাধ্য হয়। কয়েক বছর স্বামীর সাথে সংসার করার পরে তার স্বামী তাকে ছেড়ে যায়। এক সময় স্বামীর সাথে তার ডিভোর্স হয়। এরপর অসহায় হয়ে পড়েন বীনা রানী ত্রিপুরা। এক সময় ভেবে উঠতে পারছিলেন না কি করবেন। পরে দুই সন্তানের কথা চিন্তা করে শুরু করেন জীবন সংগ্রাম। তার এক মাসির (খালা) পরামর্শে সেলাইয়ের প্রশিক্ষণ নেন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে। ছয় মাস প্রশিক্ষণ শেষ করে যুব উন্নয়ন থেকে ঋণ নিয়ে শুরু করেন হেমি টেইলার্স এন্ড টেনিং সেন্টার নামে একটি দোকান। দোকানে সেলাই করেন মেয়েদের ব্লাউজ, থ্রি পিস, পেটিকোট, ছোট মেয়েদের ফ্রক, পেন্ট, স্কুল ড্রেসসহ বিভিন্ন কিছু। এর পাশাপাশি প্রশিক্ষণ দেন বেকার যুবতী ও অসহায় মেয়েদের।

বীনা রানীর কাজের মান ও তার শেখানোর আগ্রহ দেখে তার কাছে কাজ শিখতে আসে অনেক বেকার যুবতি। তার কাছ থেকে কাজ শিখে অনেকে এখন স্বাবলম্বী। রাঙ্গামাটির জেলার দুর্গম সাজেক থেকেও অনেক বেকার যুবতী কাজ শিখে এখন নিজ এলাকায় কাজ করছে।

বীনা রানী জানান তার কাছে কাজ শিখে যারা তার দোকানে কাজ করতে চায়, তাদের তিনি নির্দিষ্ট বেতনে কাজের সুযোগ দেন। আর যারা নিজ এলাকা বা বাড়ীতে কাজ করতে চায় তাদের তিনি সেলাই মেশিন কিনে দেওয়ার সহযোগীতা করেন।

বীনা রানী ত্রিপুরা একজন সফল সংগ্রামী নারী কারণ তিনি সংগ্রাম করে এতদুর এসেছেন। তার এক ছেলে, এক মেয়ে। বড় ছেলে অর্কিত ত্রিপুরা বর্তমানে আর্কিটেকচার ২য় বর্ষে আর মেয়ে হেমি ত্রিপুরা খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন স্কুলে ৭ম শেণিতে পড়াশুনা করছে।

২০১৮ সালের ১ নভেম্বর বীনা রানী সফল আত্মকর্মী হিসেবে সফল আত্মকর্মীর সম্মাননা পাওয়ার পর এলাকার সকলের দাবী সরকার যেন সকল অসহায় ও সংগ্রামী নারীদের সহায়তা করার জন্য সরকার যেন আরো বিভিন্ন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে সহযোগিতা করেন।

(Visited 171 times, 1 visits today)

About The Author

বিপ্লব তালুকদার খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী