শিরোনাম

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় স্বেচ্ছাশ্রমে ৫ কিমি রাস্তা নির্মাণ করছে ৩ গ্রামের মানুষ

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় স্বেচ্ছাশ্রমে ৫ কিমি রাস্তা নির্মাণ করছে ৩ গ্রামের মানুষ। চলাচলের জন্য কোনো সড়ক বা রাস্তা না থাকায় সামাজিকভাবে এই উদ্যোগ নিয়েছে তারা। উঁচু পাহাড়ের ঘন জঙ্গল পরিষ্কার করে কাঁচা রাস্তা বানালেও রাস্তাটির উন্নয়নে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছে গ্রামবাসী। ৫ কিমি সড়ক নির্মাণে টানা এক মাস সময় লাগবে বলে জানিয়েছে গ্রামবাসী। গ্রামের রাস্তা উন্নয়নে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে প্রশাস।

খাগড়াছড়ির দীঘিনালার মেরুং ইউনিয়নের দুর্গম বগাপাড়া, ছোট হাংড়াখাইয়া, বড় হাংড়াখাইয়া। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ২০ কিমি দূরের এই তিন গ্রামে প্রায় ২০ হাজার মানুষের বসবাস। তবে এসব পাহাড়ি গ্রামের যাতায়াতের কোনো সড়ক বা রাস্তা নেই।  দীর্ঘদিনেও রাস্তা না থাকায় সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে তারা। পাহাড় পেরিয়ে যেতে হয় গ্রামের বাসিন্দাদের। এই সমস্যা সমাধানে সামাজিকভাবে রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেয় গ্রামবাসী। গ্রামের একমাত্র বিহারটিতে যাওয়ার কোন পথও নেই। দীর্ঘ দিনেও সরকারি-বেসরকারি কোনো সহযোগিতা না পাওয়ায় গ্রামের মানুষ এই উদ্যোগ নিয়েছে।

স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা বানানোর কাজ করছে গ্রামের বিভিন্ন বয়সী মানুষ। চলাচলের জন্য কেউ বনের জঙ্গল কাটছে। আবার কেউ পাহাড়ের খাড়া অংশ রাস্তা উপযোগী করছে। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে গ্রামের মানুষ দিন রাত এই কাজ করছে। নারী পুরষের সাথে কাজ করছে কিশোরাও ।

গ্রামবাসীরা বলেন, গ্রামের মানুষের যাতায়াতের কোন রাস্তা নেই। ছেলে-মেয়েরা খুব কষ্ট করে স্কুলে যায়। বর্ষা আসলে পাহাড় বেয়ে গ্রামে আসা যাওয়া খুব কঠিন। গ্রামের মানুষেরর উৎপাদিত মালামাল কাঁধে করে পরিবহন করতে হয়। কেউ অসুস্থ হলে কাঁধে করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়।

সরকারের বিভিন্ন দফতরে যোগাযোগ করেও কোনো লাভ হয়নি বলে জানিয়েছে গ্রামবাসী। সরকার যদি স্বেচ্ছাশ্রমে বানানো কাঁচা রাস্তার উপর ইট বিছানোর উদ্যোগ নেয় তাহলে রাস্তাটি স্থায়ী হবে।

শুভলংকার ভান্তে জানান, এখানে ৩ গ্রামের লোকের যাতায়াত করে। বিহারে যাওয়ার জন্য কোন রাস্তায় থাকায় তারা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ৩ গ্রামের মানুষ মিলে এই উদ্যোগ নিয়েছে।

আগামী অর্থবছরে বগাপাড়াসহ ৩ গ্রামের রাস্তার উন্নয়নে আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান।

দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. কাশেম জানান, উপজেলায় টিআর, কাবিখার বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন এলাকায় কাঁচা রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে অনেক সময় বরাদ্দের অভাবে প্রয়োজন অনুযায়ী কাজ করা সম্ভব হয় না। তবে বগাপাড়া তিনি গ্রামের মানুষের যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয় । আগামী অর্থবছরে রাস্তার উন্নয়ন বা ইট সলিং করার জন্য উদ্যোগ নেয়া হবে।

গ্রামে যাতায়াতের রাস্তাটির উন্নয়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, জেলা পরিষদসহ বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন অবহেলিত এই ৩ গ্রামের মানুষ ।

(Visited 5 times, 1 visits today)

About The Author

Desk Report Staff Reporter

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী