শিরোনাম

প্রবাসিরদের সাথে মতবিনিময়ে প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী

আরব আমিরাত প্রতিনিধি: সংযুক্ত আরব আমিরাতে দীর্ঘ ৬ বছরের অধিক সময় ধরে বাংলাদেশের শ্রম বাজার বন্ধ। বাংলাদেশের শ্রম বাজার দিন দিন দখলে নিচ্ছে পার্শ্ববর্তী দেশগুলো। সেই সাথে দক্ষ শ্রমিক প্রেরণে অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ এখন অনেক পিছিয়ে। তাই অদক্ষ শ্রমিক প্রেরণে সর্তকতা এবং বিদেশে দক্ষ শ্রমিক পাঠানোর উপর গুরুত্ব দেয়া হবে। এজন্যে উপজেলা ভিত্তিক ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টারও চালু করা হয়েছে। এসব ট্রেনিং সেন্টারের মাধ্যমে বিদেশের যোগ্য কর্মী তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিকদের হয়রানি বন্ধে সরকার মধ্যপ্রাচ্যের সবদেশে সেফহোম খুলছে বলেও জানান আমিরাত সফরত প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদ।

বিশ্বের ২য় রেমিটেন্স প্রেরণকারী আমিরাতে দেশের শ্রম বাজার চলে যাচ্ছে প্রতিবেশী দেশগুলোর দখলে। বাংলাদেশী শ্রমিক না পেয়ে কাজ করাতে হচ্ছে অন্য দেশের শ্রমিক দিয়ে। সেই সাথে দক্ষ শ্রমিক প্রেরণে অনেকটা পিছিয়ে বাংলাদেশ। আমিরাত সরকারের কোনো অদক্ষ শ্রমিকের চাহিদা নেই বলেও জানিয়ে দিয়েছেন। তাই বিদেশে দক্ষ শ্রমিক প্রেরণে সরকার নানা পদক্ষেপ দ্রুত নিচ্ছে এবং প্রবাসে দক্ষ কর্মী পাঠাতে সরকার ইতোমধ্যে কাজ করছে। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিকদের হয়রানি বন্ধে সরকার মধ্যপ্রাচ্যের সবদেশে সেফহোম খুলছে বলেও জানান দেশ থেকে আমিরাতে সফরে আসা প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ।

মন্ত্রী আরও জানান গভর্নমেন্ট সামিটে যোগ দিতে এসে যখন যেখানে, যেভাবে আমিরাতের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের সাথে দেখা হচ্ছে শুরুতেই ভিসা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করেছি। কেননা ১৭ ফেব্রুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমিরাতে সফরে আসলে ভিসা সংক্রান্ত বিষয়ে যাতে একটা ফলপ্রসূ আলোচনার ব্যবস্থা করতে পারি।  এছাড়া প্রবাসীদের মৌলিক সমস্যা সমাধানে প্রবাসে থেকে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এক যোগে কাজ করতে হবে বলে জানান ।

আমিরাতে বাংলাদেশ দুবাই কন্সুলেট ও আবুধাবি বাংলাদেশ দূতাবাসে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রবাসী শ্রমিকদের লাইফ ইনসুরেন্স, বিমানে লাশ বহন, জনতা ব্যাংকের বুথ স্থাপন, প্রবাসীরা অবসরে যাওয়ার পর পেনশন বা সরকারি সহযোগিতার প্রস্তাব, বৈধ চ্যানেলে রেমিটেন্স প্রেরণকারীদের নানা প্রমোদনামূলক প্যাকেজ ও দেশে বিমান বন্দরে প্রবাসী অযথা হয়রানি বন্ধের জোর দাবীসহ নানা বিষয়ে মন্ত্রীকে অবহিত করেন সভায় উপস্থিত নানার পেশার প্রবাসী ও বিভিন্ন অংগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

একজন প্রবাসী দেশে গেলে বিমানের কৃত্রিম টিকেট সংকট, দেশে বিমান বন্দরে হয়রানী, তাদের জানমাল ও পরিবারের নিরাপত্তায় সরকার এগিয়ে আসবে এমনটায় প্রত্যাশা সকলের। আমিরাতে দ্বার উম্মুক্ত হবে দেশীয় শ্রম বাজারের।

(Visited 19 times, 1 visits today)

About The Author

আকবর হোসেন বাচ্চু কাতার প্রতিনিধি, ইন্টারন্যাশনাল টেলিভিশন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অ্যাবাউটবিজ্ঞাপনযোগাযোগ শর্ত ও নিয়মাবলী