তানজির ইসলাম রানা, ডেস্ক রিপোর্ট: লিওনেল মেসিরা পারেননি। বিদায় নিয়েছেন এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলো থেকেই। তবে মেসিরা যা পারেননি সেটাই করে দেখিয়েছে বার্সেলোনার নারী ফুটবল দল। চেলসিকে ফাইনালে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে জিতেছে এবারের উইমেন্স চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা। মেয়েদের ফুটবলে এই প্রথম ইউরোপ সেরা হলো বার্সেলোনা।

নারীদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এতদিন এক তরফা আধিপত্য ছিল ফরাসি ক্লাব লিওঁর। সর্বশেষ পাঁচ মৌসুমে টানা শিরোপা জেতাসহ সর্বোচ্চ সাতবারের চ্যাম্পিয়ন তারা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চারবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট। বার্সেলোনা এর আগে ২০১৯ সালে ফাইনাল খেলে হেরে যায় লিওঁর কাছে। এবার সেই প্রতিশোধ নিয়ে আরেকটি ইতিহাসের অধ্যায়েও ঢুকে গেছে বার্সা ফ্যামিনরা। পুরুষ এবং নারী দুই বিভাগেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতা একমাত্র দল এখন বার্সেলোনা।

সুইডেনের গোটেনবার্গে চেলসির বিপক্ষে অবশ্য শুরু থেকেই দাপুটে খেলেছেন বার্সেলোনার মেয়েরা। প্রথম মিনিটেই আত্মঘাতী গোল খেয়ে চেলসি পিছিয়ে পড়ে। এরপর বিরতির আগে ১৪, ২১ ও ৩৬ মিনিটে চেলসির জালে আরও তিন গোল দেয় বার্সেলোনা। ম্যাচ আসলে শেষ হয়ে গিয়েছিল সেখানেই। বাকি সময়টা শুধু আনুষ্ঠানিকতা রক্ষাতেই খেলা হয়েছে যেন।

চেলসির মেয়েরা মহিলা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল খেললেন এই প্রথমবার। হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। ২৯ মে পোর্তোয় আরেক ইংল্যান্ডের ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ছেলেদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও ফাইনাল খেলবে চেলসি। টমাস টুখেলের দল ওই ‘অল ইংলিশ ফাইনাল’ জিততে পারলে হয়তো এই ম্যাচে হারের হতাশা ভুলে যাবেন চেলসির মেয়েরাও।

সূত্র: ইনকিলাব

আরও সংবাদ

Write a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *