কামরুজ্জামান হেলাল, যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মিশিগানের রাজ্যসভার সভাপ্রধান গভর্নর গ্রেচেন হুয়েটমার এবং সহ-রাজ্য প্রধান ল্যেফটেন্যান্ট গভর্নর গারলিন গিলক্রেষ্ট সাক্ষরিত এক বিশেষ সন্মাননা এবং ট্রিবিউট প্রদান করা হয়েছে।

উল্লেখ্য এই ট্রিবিউটটি রাজ্যসভার সিনেট এবং হাউজ অফ রিপ্রেজেনটেটিভ যৌথ অধিবেশনের মাধ্যমে অনুমোদিত হয়। সিনেটের প্রতিনিধি সিনেটর পল ওয়াজনো সেনেটের পক্ষে এবং হাউজের প্রতিনিধি রিপ্রেজেন্টেটিভ লরি স্টোন হাউজের পক্ষে স্বাক্ষর করেন। মিশিগানের রাজ্যসভার ১০১তম অধিবেশনের ২১শে সেপ্টম্বর মঙ্গলবারের বৈঠকে এটি সাক্ষরিত, অনুমোদন এবং কার্যকর করা হয়।

এই ট্রিবিউটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দিতে মিশিগানের প্রবাসী বাংলাদেশী আমেরিকান ডক্টর রাব্বী আলমকে ডেলিগেট করে এটা হস্তান্তর করে মিশিগান পার্লামেন্ট। ডক্টর রাব্বী আলম যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি। এছাড়াও ডক্টর রাব্বী আলমের সাথে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মিনহাজ রাসেল চৌধুরী এবং পেন্সিলভেনিয়া রাজ্যের বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ আব্দুল হাই মিয়া। যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবন্দ এবং ডেলিগেটগণ নিউ ইয়র্কের হোটেল লটে প্যালেসে অবস্থান করেন। এই সময় যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ডক্টর রাব্বী আলম প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সেক্রেটারী এহসানুল করিম হেলালের কাছে প্রধানমন্ত্রীর ট্রিবিউটটি হস্তান্তর করেন। অতপর ট্রিবিউটের অনুলিপি কপিটি প্রধানমন্ত্রীর পিএস-১ মোহাম্মদ সালাউদ্দীনের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এই ট্রিবিউট প্রদান করায় মিশিগানের পার্লামেন্টকে বিশেষ করে সেনেটর পল ওয়াজনো এবং রিপপ্রেজেনটেটিভ লরি স্টোনকে ধন্যবাদ জানান। ড. রাব্বী আলম গভর্নর গ্রেচেন হুয়েটমার এবং ল্যাফট্ন্যান্ট গভর্নর গারলিন গেলক্রিষ্টকে সাধুবাদ জানান এবং যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সকল নেতা কর্মীদেরকে অভিনন্দন জ্ঞাপন করে বলেন, এ অর্জন সমগ্র বাংলাদেশের এবং এ অর্জনে আমরা সকল বাংলাদেশী আমেরিকান আনন্দিত এবং গর্বিত।

আরও সংবাদ

Write a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *