জি এম বাবুল, শেরপুর জেলা প্রতিনিধি: বাংলাদেশের আদিবাসী নৃ-গোষ্ঠির গারোদের নিজস্ব সাংস্কৃতি ও কৃষ্টির অন্যতম উৎসব হলো নবান্ন বা ওয়ানগালা উৎসব। শেরপুরের ঝিনাইগাতীর মরিয়মনগর সাধু জর্জের ধর্মপল্লীর গির্জা চত্তরে ২১ নভেম্বর রোববার দিনব্যাপী এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোমিনুর রীশদ।

সকাল নয়টায় থক্কা অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে ওয়ানগালা অনুষ্ঠানের সূচনা করেন মরিয়মনগর ধর্মপল্লীর পালপুরোহিত ফাদার বিপুল ডেভিট দাস সিএসসি। উৎসবে ক্রুশচত্বরে বাণী পাঠ, খামালকে (ধর্মীয় প্রধান) কুতুব পড়ানো, থক্কা প্রদান, পবিত্র খ্রীষ্টযাগ, আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ প্রার্থনার করা হয়।

এক সময় গারোরা তাদের শস্য দেবতা মিসি সালজংকে উৎসর্গ করে ওয়ানগালা পালন করলেও এখন তারা নতুন ফসল কেটে যীশু খ্রিষ্ট বা ঈশ্বরকে উৎসর্গ করে ওয়ানগালা পালন করেন।

মরিয়ম নগরে ১৯৮৫ সাল থেকে ওয়ানগালা উৎসব পালন করা হচ্ছে। জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে গারোদের ১২টি গোত্রের লোকজন ওয়ানগালা উৎসবে উপস্থিত হয়।

এদিকে ওয়ানগালা উৎসব উপলক্ষে ধর্মপল্লীর পাশে বসেছিল জমজমাট মেলা। মেলায় গারোদের ঐতিহ্যবাহী পোষাকসহ শিশুদের নানা রকমের খেলনা বিক্রি করা হয়।

আরও সংবাদ

Write a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *